উন্নয়নের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান


তারেক আজিজ প্রকাশের সময় : ০৮/০৩/২০২১, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ /
উন্নয়নের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাঁপাইনবাবগঞ্জের উন্নয়নের স্বার্থে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকারের পথে হাঁটার আহ্বান জানিয়েছেন রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজ টিএম মোজাহিদুল ইসলাম। জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনে অনৈক্যের বিষয়টি ইঙ্গিত তিনি বলেন, সরকারের দেখানো পথে না হেঁটে উল্টো পথে হাঁটার জন্য এ জেলার মানুষ উন্নয়ন বঞ্চিত হয়েছে।
আপনারা নিশ্চয় লক্ষ করেছেন বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ দেয়ার জন্য যখন গাড়ি থেকে নেমে মঞ্চের দিকে যাচ্ছিলেন তখন স্লোগান দেয়া হচ্ছিল ‘শেখ মুজিবের পথ ধরো…। আমি একজন সরকারি কর্মচারি হিসেবে সরকারের দেখানো পথ অনুসরণ করি। আপনারাও ওই পথ ধরেন। দয়া করে ভুল পথে হাঁটবেন না। ব্যাক্তিগগ স্বার্থকে নয় রাষ্ট্রের স্বার্থকে প্রাধান্য দিন।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর জনকল্যাণমুখী নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির বীজ বপন করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এরই ধারাবাহিকতায় তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ত্বাধীন বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তরিত করেছেন। আশা করি, স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে আপনারা আর ভুল পথে হাঁটবেন না।

রোববার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানা চত্বরে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অতিরিক্ত ডিআইজি আরোও বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সামাজিক রাষ্ট্রীয় ঐক্য নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে, সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় ২০৪১ সালের আগেই এদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। আজকের এই আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানটি উন্নত দেশে উত্তরণের উৎসব।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ ছিল বাঙালি জাতির মুক্তির পথপ্রদর্শক। ভাষণটির মূল লক্ষ্য ছিল পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ ঔপনিবেশিক শাসন-শোষণ ও নিয়ন্ত্রণ থেকে বাঙালির জাতীয় মুক্তি। এ ভাষণে গণতন্ত্র, আত্মনিয়ন্ত্রণ, স্বাধিকার, মানবতা এবং সব মানুষের কথা বলা হয়েছে। ফলে এ ভাষণ দেশকালের গণ্ডি ছাড়িয়ে হয়েছে সার্বজনীন। পুলিশ সুপার বলেন, বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রগতির ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদসহ রাষ্ট্র বিরোধী সব অপরাধ নিয়ন্ত্রণে জেলা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাবেক পুলিশ সুপার রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজ টিএম মোজাহিদুল ইসলামের ইতিবাচক কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করে পুলিশ সুপার বলেন, তিনি যে মানবিক ও জনবান্ধব পুলিশের যাত্রা শুরু করেছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় কাজ করে যাচ্ছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশ। জননিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি জনকল্যাণে কাজ করতে বাংলাদেশ পুলিশ অঙ্গিকারবদ্ধ।

বাংলাদেশ পুলিশ আয়োজিত আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক শরিফুল আলম, জেলা যুবলীগের সভাপতি সামিউল হক লিটন, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস সামান বকুল, পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. মোখলেসুর রহমান ও রাণীহাটি ইউপি চেয়ারম্যান মহসীন আলী।

অনুষ্ঠানে অতিক্তি পুলিশ সুপার (হেডকোর্টার) ফজল-ই-খুদা পলাশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোজাফফর হোসেন, পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কবির হোসেন, পরিদর্শক (ট্রাফিক) গোলাম সারোয়ারবহ পুলিশের কর্মকর্তারা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, গণমাধ্যমকর্মী, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে জেলা পুলিশ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।